সুস্বাস্থ্যের পথে আপনার পাশে

আমেরিকান ফিজিওথেরাপি সেন্টার

আমাদের ঠিকানা
হক প্লাজা, গুলশান - ০১
কল করুন
+8801313 -717272
মেসেজ পাঠান
info@backinmotionbd.com
কাজের সময়সূচি
বৃহঃস্পতি - মঙ্গলঃ সকাল ১০টা -রাত ৯টা

নিওরো বা স্নায়ুজনিত রোগ যেমন মাল্টিপল স্ক্লেরোসিস (এম.এস), অ্যামিওথ্রোপিক লেটারাল স্ক্লেরোসিস, পার্কিনসন ডিজিজ অথবা গুইলিয়ান বারে রোগ হলে রোগী ও তার পরিবারের জীবনে বিপর্যয় নেমে আসে।

স্নায়ুজনিত এই রোগগুলো রোগী এবং তার পরিবারের জন্য বিভ্রান্তিকর চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলে দেয়। কিন্তু আধুনিক চিকিৎসা ব্যবস্থা এবং ক্ষতি কমিয়ে আনার কৌশল রোগীর কর্মক্ষমতা এবং স্বনির্ভরতাতে বাড়িয়ে দেয়।

চিকিৎসা এবং সেবা

ব্যাক ইন মোশন সেন্টার হলো মেডিকেল রিহ্যাবিলিটেশন, যেখানে অত্যাধুনিক চিকিৎসা ব্যবস্থা, পরীক্ষিত থেরাপি এবং সর্বাধুনিক প্রযুক্তির সাহায্যে রোগীর স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্য অনুসারে তাদের সক্ষমতাকে জাগিয়ে তোলা হয়। রোগীদের যে সুবিধাগুলো এখানে আছে:

  • শারীরিক ওজনের ওপর নির্ভর করে বডি ওয়েট ট্রেডমিল ট্রেইনিং (বিডাবলিউএসটি) দেয়া হয় রোগীর চলাফেরার সক্ষমতা ও গতিশীলতা বৃদ্ধির জন্য।
  • শারীরিক ওজনের ওপর নির্ভর করে প্যারালাল বা সমান্তরাল বার ব্যবহার করে রোগীর মেঝেতে চলাচল করার সক্ষমতা তৈরি করা। যা রোগী নিরাপদ মনে করেন ও তার আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে দেয়।
  • কনস্ট্রেইন্ট ইনডিউসড মুভমেন্ট থেরাপি (সিআইএমটি), মানুষের মোটর ফাংশন আরো বেশি কার্যকর করার জন্য সিএবোফ্ল্যাক্স ডিভাইস ব্যবহার করা।

একজন স্নায়ু রোগীর শারীরিক, মানসিকসহ নানা বিষয়ক সমস্যা দেখা দিতে পারে। ব্যাক ইন মোশনের সেন্টার ফর নিওরো রিহ্যাবিলিটেশনের সহায়তায় রোগী এ ধরনের অনেক সমস্যা থেকে নিরাময় পেতে পারেন।আমরা অভিজ্ঞতা এবং দক্ষতা দিয়ে রোগীর সমস্যা সমাধানে সচেষ্ট হই এবং রোগীর অবস্থা পরিবর্তনের মাধ্যমে জীবন মানের উন্নতি ঘটে।

আমাদের পদ্ধতি

গবেষণা দেখাচ্ছে যে, যখন একজন রোগী চিকিৎসার মাধ্যমে সুস্থতার জন্য উদ্যোগী হন তখনই পরিবর্তনের সূচনা হয়।ব্যাক ইন মোশনের বিশেষায়িত পুনর্বাসন কর্মসূচিতে রোগীদের সার্বিক সেবা দিয়ে থাকে। আমাদের লক্ষ্য নির্ধারণী পদ্ধতির চিকিৎসায় রোগীগণ যে সুবিধা পেয়ে থাকেন:

  • শারীরিক কর্মক্ষমতার ইতিবাচক পরিবর্তন এবং প্রতিদিনের কাজ করার মতো দক্ষতা ফিরিয়ে আনা।
  • শক্তি, ভারসাম্য এবং গতিশীলতা বৃদ্ধি করা।
  • কথা বলার জড়তা কাটানো।
  • নতুন জ্ঞাননির্ভর ও আচরণগত কৌশলের মাধ্যমে যে কোনো ক্ষতিপূরণ করা হয়।